শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত হওয়ার পর লিঙ্গ কেটে খুন

আন্তর্জাতিক

মদ্যপ ব্যক্তির সঙ্গে সমকামিতায় লিপ্ত হওয়ার পর তার লিঙ্গ কেটে খুন করার অভিযোগ উঠেছে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। ৩৫ বছরের সেই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত মে মাসে ভারতের চেন্নাইয়ের রেটারিতে নৃশংস এই খুনের ঘটনা ঘটে।

ভারতীয় একটি দৈনিক বলছে, রেটারির আসলাম বাশার নামের এক সমকামীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত হওয়ার পর তার লিঙ্গ কেটে খুন করেন গ্রেফতারকৃত মুনিয়া সামী। একইভাবে নারায়ণ পেরুমল নামে আরেক মদ্যপ তরুণকেও খুন করার চেষ্টা করেন তিনি।

চেন্নাই পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার আর দিনাকরণ জানিয়েছেন, সিসিটিভি ফুটেজে পৃথক এই দুই ঘটনার সঙ্গে একই ব্যক্তির জড়িত থাকার আলামত পাওয়া যায়। ওই এলাকার এক মাছ ব্যবসায়ী পুলিশকে ফোন করে জানান, একই রকম দেখতে এক ব্যক্তি তার কাছে কাজ করতেন। সেই সূত্র ধরে অভিযান চালিয়ে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশের সামনে অপরাধ স্বীকার করে নিয়েছেন মুনিয়া সামী

গত ২৫ মে রেটারিতে আসলামকে অবচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ। এ সময় তার শরীর থেকে লিঙ্গ আলাদা ছিল। সেই সময় গুরুতর আহত অবস্থায় আসলাম পুলিশকে জানান, তিনি খুব হতাশ আর মদ্যপ অবস্থায় ছিলেন। সে কারণে কে তার লিঙ্গ কর্তন করেছে, তা নিশ্চিত করে বলতে পারছেন না।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যুর পর পুলিশ মামলা দায়ের করেছে। পরে ১ জুন একই ধরনের একটি ঘটনা ঘটে। আসলামের ঘটনার সঙ্গে নারায়ন নামের তরুণের এ ঘটনার সম্পর্ক রয়েছে বলে সন্দেহ করে পুলিশ। সমকামে লিপ্ত হওয়ার কথাও স্বীকার করে নেয় নারায়ণ। সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখার পর দুই জায়গাতেই অভিযুক্ত সামীর উপস্থিতি পাওয়া যায়।

পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে মুনিয়া সামী জানিয়েছে, রাতে একাকী চলাচলকারী মানুষের অপেক্ষায় রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকতেন তিনি। স্কুলের কিছু বন্ধুর সঙ্গেও শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করেছেন বলে জানিয়েছেন স্কুল থেকে ঝরে পড়া এই অভিযুক্ত।